ঢাকা, , ৭ আষাঢ় ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

জোবায়দা রহমানের তত্ত্বাবধানে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকদের সমন্বয়ে চলছে খালেদার চিকিৎসা

জোবায়দা রহমানের তত্ত্বাবধানে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকদের সমন্বয়ে চলছে খালেদার চিকিৎসা
বেগম খালেদা জিয়া

করোনা আক্রান্ত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো আছে বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এফ এম সিদ্দিকী। 

ডা. এফ এম সিদ্দিকী বলেন, ‘খালেদা জিয়া খুবই ভালো আছেন। তার অবস্থা খুবই স্থিতিশীল। আর এক সপ্তাহ যদি উনার অবস্থা এভাবে স্থিতিশীল থাকে, তাহলে বলা যায় উনি বিপদমুক্ত হলেন।’


করোনায় আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক দলের প্রধান অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী। দেশের চিকিৎসকদের পাশাপাশি যুক্তরাজ্য থেকে খালেদা জিয়ার পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসদের সমন্বয়ে চিকিৎসা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার সন্ধ্যায় খালেদা জিয়ার বাসভবন ফিরোজায় তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে সাংবাদিকদের এফ এম সিদ্দিক বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ভালো আছেন, তার শারীরিক অবস্থাও স্থিতিশীল আছে। এখন পর্যন্ত করোনায় তার শারীরিক কোনো জটিলতা দেখা যায়নি।


বিএনপি চেয়ারপারসনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হবে কি না জানতে চাইলে এফ এম সিদ্দিকী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত তাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা দেয়ার সিদ্ধান্ত। তবে হাসপাতলে নেয়ার পরিস্থিতি দেখা দিলে সে প্রস্তুতিও আমাদের আছে। আমরা সব রকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।’

৪৮ ঘণ্টা পরপর খালেদা জিয়ার শারীরিক পরীক্ষা করা হবে বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসক দলের প্রধান।

এর আগে বিকালে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তার বাসায় যান বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডা. আব্দুস শাকুর খানের নেতৃত্বে চার সদস্যের চিকিৎসক প্রতিনিধি দল। তারা সেখানে খালেদা জিয়ার অক্সিজেন লেভেল মাপার পাশাপাশি চেস্টের পরীক্ষা করেছেন।

দুর্নীতির মামলায় কারাগারে থাকার পর গত বছরের ২৫ মার্চ করোনার প্রকোপ শুরু হলে সরকারের নির্বাহী আদেশে মুক্তি পান সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। মুক্তির পর থেকে গুলশানের বাসায় অবস্থান করছেন বিএনপি প্রধান। এরমধ্যেই রবিবার তার করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

তিনি ছাড়াও তার গৃহকর্মী ও ব্যক্তিগত স্টাফদের মধ্যে আটজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

দীর্ঘদিন ধরে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী হাড়ক্ষয়, বাতের ব্যথা, চোখের সমস্যাসহ নানা অসুস্থতার মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে । যে কারণে তার চিকিৎসার জন্য বাড়তি নজর দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

বেগম জিয়ার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ম্যাডামের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আজ পর্যন্ত যথেষ্ট ভালো আছে, আলহামদুলিল্লাহ। এভাবে এক সপ্তাহ গেলে আশা করি আমরা বিপদ থেকে মুক্ত বলতে পারবো।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় বিদেশ থেকে কেউ যুক্ত হয়েছিলেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসক ও ডা. জোবায়দা রহমান সবাই মিলে সমন্বয় করে চিকিৎসা করা হচ্ছে।

খালেদা জিয়া দেশের সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন এবং সবাই সাবধানে থেকে স্বাস্থবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এসময় তার সাথে ছিলেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসক ডা. আব্দুর শাকুর খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন ও ডা. মো. আল মামুন।

এদিকে রবিবার খালেদা জিয়ার চিকিৎসক টিমের সদস্য ডা. মো. আল মামুন জানিয়েছেন, করোনার কোনো উপসর্গ নেই বেগম খালেদা জিয়ার। বাসার কর্মচারীরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তারও নমুনা নেয়া হয়। পরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত তিনি সুস্থ আছেন। তার সার্বিক চিকিৎসার জন্য বাসার ভেতরেই হাসপাতালের আদলে চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রস্তুত করা হয়েছে। এছাড়া বেসরকারি হাসপাতালে একটি কেবিনও তার জন্য বুকিং দেয়া আছে।

  • সর্বশেষ - রাজনীতি