ঢাকা, , ৯ কার্তিক ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

জীবন বাঁচাতে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার’ দেশবাসীকে বৈশাখ ও মাহে রমজানের শুভেচ্ছা

জীবন বাঁচাতে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার’ দেশবাসীকে বৈশাখ ও মাহে রমজানের শুভেচ্ছা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

জীবন বাঁচাতে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। এর ফলে অনেকের জীবন জীবিকায় সমস্যা হবে। তবে বেঁচে থাকলে আবারও সবকিছু গুছিয়ে নেওয়া যাবে। জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে এসব কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেন, জীবন যাপন নিয়ে শংকিত হওয়ার কারণ নাই। এসময় দেশবাসীকে পহেলা বৈশাখ ও মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী।

মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আপনাদের শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। সরকার সব সময় আপনাদের পাশে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা দেখেছেন, কোনোভাবেই সংক্রমণ ঠেকানো যাচ্ছে না। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে তাই আমাদের আরো কিছু কঠোর ব্যবস্থা নিতে হচ্ছে। আমি জানি এর ফলে অনেকেরই জীবন-জীবিকায় অসুবিধা হবে। কিন্তু আমাদের সবাইকে মনে রাখতে হবে – মানুষের জীবন সর্বাগ্রে। বেঁচে থাকলে আবার সব কিছু গুছিয়ে নিতে পারব।

কোভিড-১৯ এর অর্থনৈতিক ধাক্কা মোকাবেলায় নেওয়া চার দফা উদ্যোগের কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, অতীতের মতো এবারও মানুষের পাশে থাকবে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনীতির ওপর সম্ভাব্য বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় গত বছর আমরা চারটি মূল কার্যক্রম নির্ধারণ করেছিলাম।


চারটি কার্যক্রম হচ্ছে- (১) সরকারি ব্যয় বৃদ্ধি করা: সরকারি ব্যয়ের ক্ষেত্রে ‘কর্মসৃজনকেই’ প্রাধান্য দেওয়া; (২) আর্থিক সহায়তার প্যাকেজ প্রণয়ন: অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পুনরুজ্জীবিত করা, শ্রমিক-কর্মচারীদের কাজে বহাল রাখা এবং উদ্যোক্তাদের প্রতিযোগিতার সক্ষমতা অক্ষুণ্ণ রাখা, (৩) সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতা বৃদ্ধি: দারিদ্রসীমার নিচে বসবাসকারী জনগণ, দিনমজুর এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত জনসাধারণের মৌলিক চাহিদা পূরণে বিদ্যমান সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতা বৃদ্ধি; (৪) মুদ্রা সরবরাহ বৃদ্ধি করা: অর্থনীতির বিরূপ প্রভাব উত্তরণে মুদ্রা সরবরাহ এমনভাবে বৃদ্ধি করা যেন মুদ্রাস্ফীতি না ঘটে।


এছাড়া স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়ে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী জানান, কোভিড আক্রান্তদের জন্য চিকিৎসার সুযোগ বাড়ানো হচ্ছে। আছে ভ্যাক্সিন দেওয়ার প্রস্তুতি।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যেই ৫৬ লাখের বেশি মানুষকে প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। যারা প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হয়েছে। আমরা পর্যায়ক্রমে দেশের সবাইকে টিকার আওতায় নিয়ে আসব। আমাদের সে প্রস্তুতি রয়েছে। তবে টিকা নেয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

দেশবাসীর উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, টিকা নেওয়ার পরও সতর্ক থাকতে হবে। মেনে চলতে হবে ১৮ দফা নির্দেশনা।

  • সর্বশেষ - জাতীয়