ঢাকা, , ২৭ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

চীনে আগস্টেই করোনা ছড়িয়েছিল ধারণা হার্ভার্ড গবেষকদের

চীনে আগস্টেই করোনা ছড়িয়েছিল ধারণা হার্ভার্ড গবেষকদের

নোভেল করোনাভাইরাস সম্ভবত ২০১৯ সালের আগস্টের শুরুর দিকে চীনে ছড়িয়ে পড়েছিল। হাসপাতালে মানুষের আনাগোনার উপগ্রহ চিত্র ও সার্চ ইঞ্জিন উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলের গবেষকরা এমন দাবি করেছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়।

গবেষণায় উহানের হাসপাতালের পার্কিং লটের হাই-রেজ্যুলেশনের উপগ্রহ চিত্র ব্যবহার করা হয়েছে, যেখানে বছরের শেষ দিকে রোগের প্রাদুর্ভাব। এছাড়া সার্চ ইঞ্জিনে সংক্রামক রোগের লক্ষণ সংক্রান্ত বিষয়গুলো বেশি খোঁজা হয়েছিল, যেখানে ‘কাশি’ ও ‘ডায়রিয়া’র মতো শব্দগুলো ব্যবহার হয়েছিল।

গবেষকরা বলছেন, উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে আগস্টের শুরুতেই আগের বছরের তুলনায় পাঁচটি শীর্ষস্থানীয় হাসপাতালে গাড়ির পার্কিং বেড়ে গিয়েছিল ৬৬ শতাংশ। এক বিবৃতিতে তারা জানান, ‘আগস্টে আমরা একটা ব্যাপার শনাক্ত করলাম যে সার্চ ইঞ্জিনে ডায়রিয়া সংক্রান্ত খোঁজা বেড়ে গেছে, যা আগের ফ্লু মৌসুমের চেয়েও অনেক বেশি। একই সঙ্গে কাশি নিয়েও তথ্য জানা হয়েছে।’

গবেষণায় বলা হয়েছে, ‘২০১৯ সালের ডিসেম্বরে সার্স-কোভ-২ মহামারি শুরুর আগেই উহানে হাসপাতালে আনাগোনা ও সার্চ ইঞ্জিনে লক্ষণ খোঁজার প্রবণতা শুরু হয়েছিল। তবে নতুন ভাইরাসের কারণে এসব বেড়ে গিয়েছিল কিনা এখনও আমরা নিশ্চিত করতে পারছি না। তবে সামুদ্রিক মাছের বাজার থেকে ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার আগেই এর উত্থানের ব্যাপারে আমাদের প্রমাণগুলো সমর্থনযোগ্য।’

গবেষকরা বিবৃতিতে আরও জানান, ‘গবেষণায় প্রাপ্ত ফল থেকে অনুমান করা যায় এই ভাইরাস দক্ষিণ চীনে প্রকৃতিগতভাবে ‍উদ্ভুত হয়েছিল এবং উহানে গুচ্ছ সংক্রমণের আগেই সম্ভবত ছড়িয়েছিল।’

চীন মহামারির শুরুতেই বিশ্বকে এনিয়ে সতর্ক করেনি। তারা তথ্য লুকিয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের এই অভিযোগের ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি জানিয়েছে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ। নিজেদের ‘দায়মুক্ত’ করতে গত রোববার একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করে চীন, যেখানে বলা হয়েছে তারা কোনো তথ্য লুকায়নি কিংবা মহামারির শুরুতেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে সংক্রমণ সম্পর্কে জানিয়েছিল।

  • সর্বশেষ - সারাবিশ্ব